শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ০৫:৫২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :

“সিলেটে নেশাগ্রস্ত হয়ে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা”

  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ৯ অক্টোবর, ২০২০, ৪.১৪ পিএম
  • ৭৭ বার পঠিত

“সিলেটে নেশাগ্রস্ত হয়ে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা”

  রিপোর্টঃপলাশ দেবনাথ দৈনিক এটিএম নিউজ সিলেট

সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলার পশ্চিম জাফলং ইউনিয়নের লংলাখাল (ইসলামাবাদ) গ্রামে ১৫ বছর বয়সী এক স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে কবির আহমদ (৩৮)-কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আটক ধর্ষক পাৰ্শ্বৱৰ্তী মনাইকান্দি গ্রামের আলা উদ্দিনের পুত্র।
ধর্ষণের ঘটনায় ওই স্কুলছাত্রীর মা বাদি হয়ে গোয়াইনঘাট থানায় একটি মামলা দায়েরে করেন। মামলায় আসামিরা হলেন- উপজেলার মনাইকান্দি গ্রামের আলা উদ্দিনের পুত্র ইউনিয়ন কবির আহমদ ও সুলতানপুর গ্রামের আশরাফ আলীর ছেলে যুবলীগ নেতা দেলওয়ার হোসেন কিবরিয়া। কবিরকে আটকের পর আদালতের মাধ্যমে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে এবং দেলওয়ার পলাতক রয়েছেন।জানা যায়, (৭ অক্টোবর) বুধবার দিবাগত রাত আনুমানিক দুই ঘঠিকার সময় স্কুলছাত্রী পেস্ৰাব করতে ঘরের বাহিরে বের হন। পাৰ্শ্ববর্তী একটি ঘরে মদের আসরে থাকা কতিপয় নেশাগ্রস্ত হয়ে তরুণীকে আটকে ধরেন। তরুণী চিৎকার শুনে ঘর থেকে বের হয়ে আত্মীয় স্বজনরা একজনকে আটক করে। এ সময় তার সাথে থাকা অপর পরে উপস্থিত জনসাধারণ আটক কবিরকে গণধুলাই দিয়ে পুলিশে খবর দেন। খবর পেয়ে সাথে সাথে গোয়াইনঘাট থানা পুলিশের এস আই মহসীন এর নেতৃত্বে সংঙ্গীয় ফোর্স তাকে গ্রেফতার করে নিয়ে যায়। স্থানীয়রা জানান, পশ্চিম জাফলং ইউনিয়ন কবির আহমদ ও দেলওয়ার হোসেন কিবরিয়া এলাকায় নেশাগ্রস্ত হয়ে মাতলামী করতেন। তাদের যন্ত্ৰণায় অতিষ্ঠ এলাকাবাসী। এলাকায় ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করে আসছে।
স্থানীয়রা কেউ ভয়ে এদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করার সাহস পায়নি। যার ফলে এলাকার অনেক অসহায় এই স্কুলছাত্রীর মতো অনেক তরুণীদের সাথে এমন কান্ড করে আসছেন। ভয়ে কেউ তাদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করার সাহস পায়নি। নিরবে সহ্য করে আসছেন এলাকার অনেক ভুক্তভোগী পরিবার।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে গোয়াইনঘাট অফিসার ইনচার্জ আব্দুল আহাদ কবিরকে আটকের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, মেয়েটি রাতে বাতরুমের জন্য বাহিরে হলে কবির ও তার দেলোয়ার হোসেন কিবরিয়া মেয়েটি জোর পূর্বক পাশ্ববর্তী একটি বাগানে নিয়ে ধর্ষণের চেষ্ট করেন।
মেয়েটির চিৎকারে আশপাশের লোকজন এসে কবিরকে আটক করলেও দেলোয়ার পালিয়ে যায়। বৃহস্পতিবার দুপুরে কবিরকে কোর্টে আদালতে প্রেরন করা হয়েছে এবং অপর আসামী দেলোয়ারকে গ্রেফতারের জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে।
এ ব্যাপারে স্থানীয় ইউপি সদস্য মুন্সী আব্দুল মুমিন জানান আমি ঘটনাটি শুনেছি তবে আমি বর্তমানে এলাকার বাহিরে আছি

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

doeltv38GRD5838
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Developed By ATM News