রবিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ০৯:০০ অপরাহ্ন
শিরোনাম :

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নাম ভাঙ্গিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় দখলের অপচেষ্টা

  • আপডেট টাইম : বুধবার, ২ ডিসেম্বর, ২০২০, ৯.০২ পিএম
  • ১১৬ বার পঠিত

কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি ট্রাস্টের অধীনে ২০১৩ সালে পর্যটন নগরী কক্সবাজারে তথা দেশের দক্ষিণ – পূর্বাঞ্চলের একমাত্র বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি ( সিবিআইইউ ) অনুমােদন দেয় সরকার । প্রতিষ্ঠার সাত বছর পর সম্প্রতি ট্রাস্টের সালাহউদ্দিন আহমদ নামের একজন সদস্য সব প্রতিষ্ঠাতা সদস্যকে বাদ দিয়ে সম্পূর্ণ নতুন একটি ট্রাস্ট রেজিস্ট্রেশন ( ডিড নং : ৩১৫০ , ১২/১০/২০২০ , কক্সবাজার ) করে নিজেকে প্রতিষ্ঠাতা দাবি করে বিশ্ববিদ্যালয় দখলের অপচেষ্টায় লিপ্ত হয়েছেন । পেশীশক্তি ব্যবহার করে নিয়ােগ বাণিজ্যসহ নানা অপকর্ম করছেন । এমনকি এ জবরদখল ও লুটতরাজের ক্ষেত্রে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নাম ভাঙ্গাচ্ছে সালাহউদ্দিন আহমদের । এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার পরিবেশ মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে । যদিও প্রতিষ্ঠাকালীন প্রপােজাল বুক , ট্রাস্ট ডীড এবং শিক্ষা মন্ত্রণালয় – বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের ( ইউজিসি ) বিভিন্ন নথিপত্রে এ বিষয়ে সুস্পষ্ট বর্ণনা রয়েছে ।

আজ বুধবার বাংলাদেশ ক্রাইম রিপাের্টার্স অ্যাসােসিয়েশন ( ক্র্যাব ) মিলনায়তনে কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি ট্রাস্টের আয়ােজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য তুলে ধরা হয় । সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি ট্রাস্টের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য মাহবুবা সুলতানা । এ সময় আরাে উপস্থিত ছিলেন কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি ট্রাস্টের সেক্রেটারি ও সিবিআইইউ প্রতিষ্ঠাতা লায়ন মাে . মুজিবুর রহমান , ট্রাস্টি সদস্য আবদুস সবুর ও ট্রাস্টি সদস্য আবদুল মাবুদ ।

লিখিত বক্তব্যে বলা হয় , গত ২ জুন ২০২০ ইং তারিখে ট্রাস্টের সম্মানিত সেক্রেটারি ও সিবিআইইউ প্রতিষ্ঠাতা লায়ন মাে . মুজিবুর রহমানের নামে একটি মিথ্যা মামলা দায়েরের মধ্য দিয়ে ট্রাস্টের সদস্য ও প্রাক্তন চেয়ারম্যান সালাহ উদ্দীন আহমদ বৈশ্বিক মহামারিজনিত লকডাউন চলাকালে কতিপয় অসাধু কর্মকর্তার যােগসাজশে অন্যায়ভাবে বিশ্ববিদ্যালয়ে একচ্ছত্র কর্তৃত্ব কায়েম করেন । এরপর তিনি ট্রাস্টকে পাশ কাটিয়ে নিজেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্যোক্তা ও প্রতিষ্ঠাতা দাবি করে অনেক শিক্ষক – কর্মকর্তাকে অব্যাহতি দিয়ে নিয়ােগ বাণিজ্য শুরু করেন । অপকর্মের প্রতিবাদ করলে বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্যোক্তা ও প্রতিষ্ঠাতা পুনঃনির্ধারণের জন্য গত ০৭/০৬/২০২০ তারিখে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে আবেদন করেন । যদিও বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার সাত বছর পর এ ধরনের অপচেষ্টা হাস্যকর ও ষড়যন্ত্রমূলক । যদিও প্রপােজাল বুক ও অনুমােদনপত্র অনুযায়ী সিবিআইইউ – এর প্রতিষ্ঠাতা লায়ন মাে . মুজিবুর রহমান । বিশ্ববিদ্যালয় অনুমােদনকালে ইউজিসি কর্তৃক গঠিত পরিদর্শক দল কক্সবাজারে এসে সরেজমিনে পরিদর্শনপূর্বক যে প্রতিবেদন জমা দিয়েছেন তাতেও প্রতিষ্ঠাতা হিসেবে সবচেয়ে বেশি অবদান ছিল মাে . মুজিবুর রহমানের । তাঁর দেওয়া আর্থিক অনুদানসহ সবকিছুর বিশদ বিবরণ রয়েছে । ফলশ্রুতিতে বিগত ১৫/০৯/২০১৩ ইং তারিখ শিক্ষা মন্ত্রণালয় কর্তৃক এবং ৬/১০/২০১৩ ইং তারিখ ইউজিসি কর্তৃক লায়ন মাে . মুজিবুর রহমানকে উদ্যোক্তা করে বিশ্ববিদ্যালয় অনুমােদনের চিঠি পাঠানাে হয় । এরপর গত ৭ বছর যাবত শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং ইউজিসি থেকে লায়ন মাে . মুজিবুর রহমানকে প্রতিষ্ঠাতা / উদ্যোক্তা সম্বােধন করে বিভিন্ন সময়ে পত্র আদান – প্রদান হয় ।

সংবাদ সম্মেলনে আরাে বলা হয় , বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা ও উদ্যোক্তার বিষয়টি দিনের আলাের মতাে পরিষ্কার হলেও সালাহউদ্দিন আহমদের হাস্যকর আবেদনের প্রেক্ষিতে অজানা কারণে ইউজিসিকে তদন্ত করার জন্য চিঠি দেয় শিক্ষা মন্ত্রণালয় । সে চিঠির আলােকে ইউজিসির সম্মানিত সদস্য ড . দিল আফরােজা বেগমকে আহ্বায়ক করে একটি তদন্ত কমিটি গঠন হয় । ওই তদন্ত কমিটি আমাদের কারাে সাক্ষাৎকার না নিয়ে একটি খসড়া প্রতিবেদন তৈরি করে । বিষয়টি জানতে পেরে ইউজিসি চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড . শহীদুল্লাহ বরাবর একটি চিঠি প্রেরণ করা হয় । পরবর্তীতে আমাদের অভিযােগের ভিত্তিতে সম্মানিত ইউজিসি চেয়ারম্যান স্যারের হস্তক্ষেপে ওই তদন্ত কমিটি পুনর্গঠন করা হয় । তাদের তদন্ত কার্যক্রম বর্তমানে চলমান । সালাহ উদ্দীন আহমদ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে কোন ধরনের অবদান না রেখে তিনটি মিথ্যা কথার আশ্রয় নিয়ে কতিপয় দৃষ্কৃতিকারীর সহযােগিতায় দীর্ঘ ৭ বছর পর নতুন করে উদ্যোক্তা নির্ধারণের জন্য মন্ত্রণালয়ে একটি রহস্যজনক আবেদন পত্র জমা দেন । আবেদনপত্রে সালাহ উদ্দীন আহমদ বলেন , ২০১৩ সালে কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার এক বিশাল জনসভায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা আমাকে উদ্দেশ্য করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার তাগিদ দেন ” – কথাটি সত্য হলেও সালাহ উদ্দীন আহমদ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে এক বিশাল প্রতারণা করেছেন । তিনি ২০১৩ সালের কোন তারিখ , কোন মাস কিছুই উল্লেখ করেননি । কারণ তিনি ঘােলা পানিতে মাছ শিকার করতে পারদর্শী । উখিয়ার ঐ জনসভার তারিখ ছিল ৩ সেপ্টেম্বর ২০১৩। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয় অনুমােদনের জন্য আবেদন করা হয় ২ মে ২০১৩ সালে এবং ইউজিসির টিম আসেন ২৬/০৬/২০১৩ তারিখ

 

সংবাদ সম্মেলনে লায়ন মাে . মুজিবুর রহমান বলেন , একটি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করার জন্য একটি প্রপােজাল বুক জমা দিতে হয় । একটি ট্রাস্ট গঠন করতে হয় । প্রপােজাল বুকে প্রতিষ্ঠাতার নাম ও জীবনবৃত্তান্ত বিস্তারিত দেয়া থাকে । ডীড অব ট্রাস্টেও উদ্যোক্তা ও প্রতিষ্ঠাতার নাম স্পষ্ট উল্লেখ রয়েছে । এমনকি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠায় যে অর্থ ব্যয় হয়েছে সেটিও আমি করেছি । বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাকালীন দেয়া ইউজিসির পরির্দশন প্রতিবেদনে এগুলাের প্রমাণ রয়েছে । গত সাত বছরে মন্ত্রণালয় ও ইউজিসির সব চিঠি উদ্যোক্তা হিসেবে আমার নামেই এসেছে । সুতরাং এ বিষয়ে কোনাে বিতের্কের সুযােগ নেই । আমি এ বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বপ্নদ্রষ্টা , প্রতিষ্ঠাতা ও উদ্যোক্তা । সালাহউদ্দিন আহমদ বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়নে সহায়তা দেয়ার প্রতিশ্রুতি করায় তাকে সদস্য হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করা হয় । এমনকি তার আগ্রহের কারণেই ট্রাস্টের চেয়ারম্যানও করা হয় । তবে তিনি অর্থ সংস্থান থেকে শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্বিক কর্মকান্ডে কোনাে ধরনের সহযােগিতা না করায় ট্রাস্টিদের মতামতের ভিত্তিতে নতুন চেয়ারম্যান নির্বাচন করা হয়েছে । এখন তিনি সেটা মেনে নিতে না পেরে অবৈধভাবে বিশ্ববিদ্যালয় দখলের অপচেষ্টায় লিপ্ত হয়েছেন । এর অংশ হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয় অনুমােদনের সাত বছর পর এর উদ্যোক্তা পুনরায় নির্ধারণের জন্য মন্ত্রণালয়ে আবেদন করেছেন , যা হাস্যকর । এমনকি ট্রাস্টিদের ঐকমত্যের ভিত্তিতে চেয়ারম্যান পদ থেকে সরিয়ে দেয়ার পরও নির্লজ্জের মতাে সম্পূর্ণ অবৈধভাবে নিজেকে বিওটি চেয়ারম্যান ও বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা বলে পরিচয় দিয়ে বেড়াচ্ছেন । ভূয়া প্রতিষ্ঠাতা দাবিদার সালাহউদ্দিন আহমেদের আবেদনের প্রেক্ষিতে ইউজিসি এ বিষয়ে তদন্ত করছে । এখন আমাদের প্রশ্ন হলাে- প্রতিষ্ঠার সাত বছর পর কোনাে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা নতুন করে নির্ধারণের সুযােগ রয়েছে কি না ।

রিপোর্টঃ সেলিম আসলাম সোহেল দৈনিক এটিএম নিউজ চট্টগ্রাম।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

doeltv38GRD5838
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Developed By ATM News