বৃহস্পতিবার, ০৫ অগাস্ট ২০২১, ০২:১৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
চকরিয়ার সুরাজপুর-মানিকপুরে বন্যা দুর্গতদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ  ব্রেকিং নিউজ বাংলাদেশে করোনা আপডেট আজ বুধবার,  আজকে সুরাজপুর মানিকপুর ইউনিয়নে একটি করোনা প্রতিরোধ কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়। উখিয়া উপজেলা যুবলীগের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করছে মাদকাসক্ত মুজিব, ইয়াবা কারবারীদের নিয়ন্ত্রণ করে খুলনা বিভাগে গত ২৪ ঘণ্টায় ৩৫ জনের মৃৃত্যু: সনাক্ত ৭৪৫ জন। জয়পুরহাটে সন্তানের খাবারের জন্য মা সন্তানকে দত্তক দিতে চায় চিত্র নায়িকা পরি মনির বাসায় RAB এর অভিযান। পরিবেশের বিপর্যয়: ৮ বছরের বাগান, ১০ লাখ লেবুসহ ৫ হাজার গাছ কেটে দিল বন বিভাগ ! দোয়ারাবাজারে পুলিশের অভিযানে চুরি হওয়া মহিষ বিক্রির টাকাসহ আটক ৩ ১০ আগস্ট পর্যন্ত চলমান লকডাউন বৃদ্ধি

ভোলার বোরহানউদ্দিনে সরকারি ঔষধ কেলেঙ্কারির ঘটনা তদন্ত করলেন তদন্তকারী দল

  • আপডেট টাইম : সোমবার, ৩১ আগস্ট, ২০২০, ১১.২৭ এএম
  • ১৩৫ বার পঠিত

ভোলার বোরহানউদ্দিনে সরকারি ঔষধ কেলেঙ্কারির ঘটনা তদন্ত করলেন তদন্তকারী দল
——————————-
বোরহানউদ্দিন প্রতিনিধিঃ

দৈনিক এটিএম নিউজ :   
ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সিনিয়র নার্স তৃপ্তি রায়ের সরকারি ঔষধ কেলেঙ্কারির ঘটনা তদন্ত করে গেলেন তদন্ত কমিটি।
বৃহস্পতিবার সকালে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স মিলনায়তনে সাংবাদিক ও অভিযক্ত নার্স তৃপ্তি রায়ের বক্তব্য শুনেন তদন্তকারী দল।এরপর অভিযুক্ত নার্স তৃপ্তি রায়,নার্সিং সুপার ভাইজার নাজমা বেগম, এর লিখিত বক্তব্য গ্রহণ করেন তারা।
উল্লেখ্য গত ১৬ আগস্ট বোরহানউদ্দিন হাসপাতালের সিনিয়র স্টার নার্স তৃপ্তি রায় নিয়ম বহিভূত ভাবে হাসপাতালের ৪৮ পাতা সরকারি ঔষধ বাসায় নিয়ে যাওয়ার সময় ক্যামেরা বন্ধি হন।ভিডিওটি ভাইরাল হলে দেশ জুড়ে তোলপাড় সৃষ্টি হয়। ওই ঘটনার প্রেক্ষিতে
ভোলার সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ ওয়াজেদ আলী, ভোলা সদর হাসপাতালের স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তা ডাঃ মোঃ মনিরুজ্জামান কে প্রধান করে ৩ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত বোর্ড গঠন করেন। কমিটির অপর সদস্যরা হলেন,ভোলা সিভিল সার্জন অফিসের মেডিকেল অফিসার ডাঃ ফারজানা খান(জুটি), একই অফিসের জুনিয়র স্বাস্থ্য শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ সোলায়মান।
তবে ভিডিও ধারণকারী সংবাদকর্মী এইচ এম এরশাদ জানান,ভিডিওর ধারণের সময় ওই নার্সের সাথে থাকা বোরকা পরিহিত একজন মহিলার হাতে একটি বড় ব্যাগ ছিল।ভিডিওর বিষয়টি টের পেয়ে ওই মহিলা দৌড়ে পালিয়ে যায়।এ ঘটনা বললেও তদন্তকারী দল ওই বিষয়টি আমলে নেননি। তাছাড়া তৃপ্তি রায়ের বক্তব্য অনুসারে যে টিকেটগুলোর মাধ্যমে ওইদিন তিনি ঔষধগুলো নেন বিতরণকৃত ঔষধ আর রেজিস্ট্রার পর্যালোচনা করেননি।এমতাবস্থায় সচেতন মহল মনে করছেন, এটি কী প্রকৃত ঘটনা উদঘাটনের জন্য তদন্ত? নাকি অভিযুক্ত তৃপ্তি রায়কে সেইভ করার জন্য লোক দেখানো তদন্ত হচ্ছে?
তদন্ত টিমের প্রধান ভোলা সদর হাসপাতালের স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তা মোঃ মনিরুজ্জামান বলেন,তদন্ত রিপোর্ট আমরা ভোলা সিভিল সার্জনের নিকট প্রদান করব।তদন্তের স্বার্থে তিনি আর কথা বলতে অপারগতা প্রকাশ করেন।
ভোলার সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ ওয়াজেদ আলী বলেন,তদন্ত রিপোর্ট এখনও পাওয়া যায়নি।তদন্ত কমিটি মৌখিক ভাবে সময় বর্ধিতকরণের কথা বলছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

doeltv38GRD5838
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Developed By BanglaHost