বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই ২০২১, ০৯:৩২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
মাতারবাড়ী কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্পে করোনার হার জেলায় সর্বোচ্চ: স্থানীয়দের মধ্যে আতঙ্ক খুলনা বিভাগে ২৪ ঘণ্টায় ৩১ জনের মৃৃত্যু।  টানা ভারী বর্ষণে পানির নিচে কক্সবাজার পাহাড় ধ্বসে একই পরিবারের পাঁচজন নিহত কুষ্টিয়ায় লকডাউনের ২৯তম দিনেও কঠোর অবস্থানে পুলিশ  আরিফুল ইসলামের ভাইরাল হওয়া পোস্ট: মহেশখালী উত্তর উপজেলা-থানা বাস্তবায়ন প্রসংগ চকরিয়ায় করোনা বিপর্যস্ত মানবতার পাশে “একেএমবি আন্জুমানে খুদ্দামুল মুসলিমিনের এম্বুলেন্স সেবা” খুলনা বিভাগে করোনায় আক্রান্ত হয়ে আবার ও ৪৬ জনের মৃত্যু। চকরিয়ার ঐতিহ্যবাহী বদরখালী বাজারে দূর্ধর্ষ চুরি ঈদগাঁওকে নবম উপজেলায় রূপান্তরিত, প্রধানমন্ত্রীকে কৃতজ্ঞতা জানালেন কউক চেয়ারম্যান ফোরকান। নওগাঁয় পুকুরে ডুবে তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রীর মর্মান্তিক মৃত্যু 

পেকুয়ায় দুর্বৃত্তের ছুরিকাঘাতে গ্রাম পুলিশ আহত

  • আপডেট টাইম : সোমবার, ৬ জুলাই, ২০২০, ১১.৫০ পিএম
  • ৬৭ বার পঠিত

পেকুয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধি

কক্সবাজারের পেকুয়া উপজেলার মগনামায় দুর্বৃত্তদের ছুরিকাঘাতে আবু ছালেক (২০) নামে এক (গ্রাম পুলিশ) চৌকিদার আহত হয়েছে।

ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার সকাল ১১টার দিকে মগনামা ইউনিয়নের ঘাট মাঝির পাড়া এলাকায়।

আহত গ্রাম পুলিশ সদস্য একই ইউনিয়নের মরিচ্যাদিয়া এলাকার কাইছার উদ্দিনের ছেলে। সে ৯নং ওয়ার্ডের দায়িত্বপ্রাপ্ত গ্রাম পুলিশ বলে জানা গেছে।
পরে স্থানীয়দের সহযোগিতায় দফাদার আলমগীরের নেতৃত্বে একদল চৌকিদার আহত আবু ছালেককে উদ্ধার করে সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করেন।

আহত চৌকিদার আবু ছালেক বলেন, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান শরাফত উল্লাহ চৌধুরীর নির্দেশে ঘাট মাঝির পাড়া এলাকার মৃত নুরুল ইসলামের ছেলে আবুল শামা ও তার ছেলে রবিউল আলমকে ডাকতে তাদের বাড়িতে যাই। এরপর আবু্ল শামাসহ তার পরিবারের লোকজন ক্ষিপ্ত হয়ে আমাকে মারধর করে। একপর্যায়ে আবুল শামার হাতে থাকা ছুরি নিয়ে আমার হাতে ছুরিকাঘাত করে। এই সময় আমার ডান হাত কেটে গুরুতর জখম হয়। মগনামা লঞ্চঘাট এলাকার ফিশারি ব্যবসায়ী ছরওয়ার বাদি হয়ে একটি অভিযোগ করেছিল। সে অভিযোগের সূত্রে আমি তাদের বাড়ি যাই।
বাদি সরওয়ার বলেন, আবুল শামার ছেলে রবিউল আলম আমার দোকানের কর্মচারী ছিল। বিগত ১০দিন আগে সেই আমার দোকান থেকে ১লাখ ৬৫ হাজার টাকা তালা ভেঙে নিয়ে যায়। তাৎক্ষনিকভাবে তাকে ধরে আমি চেয়ারম্যান বরাবর নিয়ে আসি। সোমবার আসামী রবিউল আলম বাড়িতে আসছে খবর পেয়ে আমি চেয়ারম্যান মহোদয়কে অবগত করিলে ওনি চৌকিদার আবু ছালেককে পাঠিয়ে রবিউল আলম ও তার পিতা আবু্ল শামাকে ইউপি কার্যালয়ে হাজির হওয়ার জন্য বলেন। ওই সময় আবুল শামাসহ তার পরিবারে লোকজন চৌকিদারকে ছুরিকাঘাত করে আহত করে।

ইউপি চেয়ারম্যান শরাফত উল্লাহ চৌধুরী ওয়াসিম বলেন, চুরির অভিযোগে সরওয়ার আলম বাদি হয়ে একটি অভিযোগ দেয়। ইউপি কার্যালয়ে হাজির হওয়ার জন্য আবু ছালেক কে পাঠিয়ে ছিলাম। চৌকিদারের উপর হামলা জঘন্যতম অপরাধ। এবিষয়ে মগনামা ইউপি কার্যালয়ের পক্ষ থেকে হামলাকারীদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করা হবে।

পেকুয়ায় আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে জমি দখল নিতে মরিয়া প্রভাবশালী মহল

পেকুয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধি
কক্সবাজারের পেকুয়ায় উপজেলা কয়টি ইউনিয়ন এর আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে জমি দখল নিতে মরিয়া হয়ে উঠেছে স্থানীয় এক প্রভাবশালী মহল। আইনের প্রতি কোনো তোয়াক্কা না করে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে ওই প্রভাবশালী গং জোরপূর্বক জমি দখল করতে দিন দিন বেপরোয়া হয়ে উঠছে। তাদের ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীরা অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে জমির মালিক পক্ষকে নানা ধরনের হুমকি দিয়ে আসছে এমনই অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগী পরিবার।
জানাযায়, টইটং ইউনিয়নের বটতলী ওয়াজ খাতুন পাড়া এলাকার মরহুম মাওলানা গোলাম কাদেরের ছেলে মাওলানা ইসমাইল গংয়ের দীর্ঘ বছরের ভোগ দখলীয় জমি। ওই জমি দখল নিতে পায়তারা চালাচ্ছে স্থানীয় প্রভাবশালী মাস্টার হারুন-অর-রশিদ গং এর লোকজন। এ বিষয়ে মাওলানা ইসমাইল বাদী হয়ে পেকুয়া থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগ সূত্রে জানাযায়, জমির মূল মালিক মাওলানা গোলাম কাদের জীবদ্দশায় ভুলবশত বিএস রেকর্ডে তার নাম অন্তর্ভুক্ত হয়নি।পরবর্তী সময়ে ভূমি কর্মকর্তাদের দায়িত্বহীনতার কারণে ওই জমি ১নং খতিয়ানভুক্ত হয়ে যায়। সেই সুবাদে ওই প্রভাবশালী মাস্টার হারুন-অর-রশিদ গং গোপনে খতিয়ান সৃজন করে অবৈধভাবে ভোগ দখলে যাওয়ার চেষ্টা চালায়। পরে জমির প্রকৃত মালিক গন আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন।
এদিকে মাওলানা ইসমাইল গংয়ের মোহাম্মদ ইলিয়াস বলেন, টৈটং মৌজার আর এস খতিয়ান ২৫২, আর এস দাগ ৫৫০/ক, ২৩৪, খরিদা দলিল নাম্বার ৪৭২/১৯৫৩ ইং, বি এস খতিয়ান ১৭৫৩, বি এস দাগ ১৫১২ এর ৩২ শতক জমি আমাদের দীর্ঘ বছরের পৈত্রিক সম্পত্তি ভোগ দখলে আছি। বিগত কয়েক বছর ধরে হারুন-উর-রশিদ গংয়ের লোকজন আমাদের পৈত্রিক সম্পত্তি অবৈধভাবে দখলে নিতে পাঁয়তারা করছে। বড় ভাই মাওলানা ইসমাইল বাদী হয়ে জান্নাতুল ফেরদৌস ও তার স্বামী মাস্টার হারুন-অর-রশীদকে বিবাদী করে একটি মামলা দায়ের করে। যার মামলা নাম্বার ১৯৩/১৭। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে বর্তমানে বিচারাধীন। আদালত কাগজপত্র পর্যালোচনা করে ওই বিরোধীয় জায়গার উপর আসামিদের বিরুদ্ধে অন্তর্বর্তীকালীন নিষেধাজ্ঞা জারি করেন। অদ্যাবধি নিষেধাজ্ঞা বলবৎ থাকা সত্ত্বেও প্রভাবশালী ভূমিদস্যুরা জায়গা দখল নিতে অপচেষ্টা অব্যাহত রেখেছে। প্রভাবশালী দখলবাজদের এমন অত্যাচার থেকে পরিত্রান পেতে পেকুয়া থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছে। পেকুয়া থানার ওসি কামরুল আজম বলেন এ ব্যাপারে একটি অভিযোগ পাওয়া গেছে। স্থায়ী সমাধানের জন্য তদন্ত করতে হবে।বিষয়টি সরেজমিনে দেখার জন্য মঙ্গলবার সকালে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

doeltv38GRD5838
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Developed By BanglaHost