শনিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২১, ০৬:৫৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :

ধর্ষণ থেকে ভাস্কর্য ভাঙচুর- ১৫ মিনিটেই সমসাময়িক বাংলাদেশ

  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ১৭ ডিসেম্বর, ২০২০, ৮.০৯ পিএম
  • ১১৮ বার পঠিত

ধর্ষণ থেকে ভাস্কর্য ভাঙচুর- ১৫ মিনিটেই সমসাময়িক বাংলাদেশ

 

সড়কের মধ্যে অস্থায়ী বেদীর উপর দাঁড়িয়ে আছেন এক নারী। তার চোখ বাঁধা আর একহাতে দাঁড়িপাল্লা ও অপর হাতে তলোয়ার। দঁড়ি দিয়ে হাত-পা বেঁধে সেই নারীকে টেনে নামাতে চেষ্টা করছে কয়েকজন যুবক।

 

২০২০ সালের ১৬ ডিসেম্বর দুপুরে সিলেট নগরের চাঁদনীঘাট এলাকায় দৃশ্যায়িত এই চিত্রটি মনে করিয়ে দেবে ২০১৭ সালের ২৬ মে’র একটি ঘটনা। ওই বছরের ২৬ মে মধ্যরাতে ঠিক এইভাবেই একটি নারী ভাস্কর্যকে টেঁনেহিচড়ে নামানো হয়েছিলো সুপ্রিম কোর্টের সামনা থেকে। ‘ন্যায় বিচারের প্রতীক’ হিসেবে নির্মিত সেই ভাস্কর্যটি সরিয়ে নিতে হয় ধর্মভিত্তিক গোষ্ঠীর আপত্তির মুখে।

 

তিন বছর পর আবার ভাস্কর্য নিয়ে দেখা দিয়েছে উত্তাপ। রাজধানীতে বঙ্গবন্ধুর একটি ভাস্কর্য নির্মাণ নিয়ে আপত্তি জানিয়েছে ধর্মভিত্তিক কিছু দল। সরকার দল এবং বিভিন্ন সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবী সংগঠনের পক্ষ থেকে এই বিরোধিতারও আপত্তি জানানো হয়েছে। এনিয়ে বাদানুবাদের মধ্যে কুষ্টিয়ায় বঙ্গবন্ধুর একটি ভাস্কর্য ভাঙচুরও করেছে দুর্বৃত্তরা।এমন পরিস্থিতিতে নাটকের মাধ্যমে ভাস্কর্য বিরোধিতার প্রতিবাদ জানিয়েছে সিলেটের নাট্যসংগঠন ‘নগরনাট’। বুধবার (১৬ ডিসেম্বর) দুপুরে সুরমা নদীর তীরের চাঁদনীঘাটে তারা মঞ্চস্থ করে ইন্টারেক্টিভ স্ট্রিট ড্রামা ‘স্লিপিং স্কোয়াড’। সেই নাটকেই দেখা যায় ‘ন্যায় বিচারের প্রতীক’ ভাস্কর্যকে টেনে নামানোর দৃশ্য।কেবল ভাস্কর্যবিরোধিতার প্রতিবাদ নয়, এই নাটকের মাধ্যমে নারী নিপীড়ন, পুলিশ হেফাজতে মৃত্যু, দুর্নীতি, বাক স্বাধীনতা দমনের চেষ্টাসহ সম্প্রতিক বিভিন্ন ঘটনার প্রতিবাদ জানানো হয়। ১৫ মিনিটের এক নাটকেই ফুটিয়ে তোলা হলো সমসাময়িক বাংলাদেশ।

 

নাটকে অংশ নেওয়া অভিনেতারা উদোম গায়ে সাম্প্রতিক ঘটা বিভিন্ন ঘটনার সংবাদ শিরোনাম বুকে-পিঠে ও হাতে-পায়ে লিখে এসব অনিয়মের বিরুদ্ধে সবাইকে সরব হওয়ার আহ্বান জানান।

 

চাঁদনীঘাটে আলী আমজদের ঘড়িঘরের পাশে এই নাটক দেখতে জড়ো হন কয়েকশ’ দর্শক।

 

‘স্লিপিং স্কোয়াড’-এর রচনা ও নির্দেশনায় ছিলেন অরূপ বাউল। তিনি বলেন, দেশে একের পর ঘটনা ঘটে চলছে। ধর্ষণ-নারী নিপীড়ন কিছুতেই বন্ধ হচ্ছে না। পুলিশ হেফাজতে মানুষ মারা যাচ্ছে। দুর্নীতি থামছে না। আমাদের শেকড়ে আঘাত করছে মৌলবাদীরা। কিন্তু সব কিছুই যেনো আমাদের গা সওয়া হয়ে উঠেছে। আমরা যেন জেগে-জেগেই ঘুমাচ্ছি। এই ঘুমিয়ে থাকা জনগণকে জেগে ওঠার আহ্বান জানাতেই আমাদের নাটক ‘স্লিপিং স্কোয়াড’।

 

নগরনাট’র সভাপতি উজ্জ্বল চক্রবর্তী বলেন, আমাদের মুক্তিযোদ্ধা একটি সমতার ভিত্তিতে একটি রাষ্ট্র গঠনের জন্য যুদ্ধে গিয়েছিলেন। যেখানে সাম্য, সম্প্রীতি আর ন্যায় বিচার থাকবে। কোনো বিশেষ জাতি, ধর্ম বা গোষ্টির জন্য বাংলাদেশ স্বাধীন করা হয়নি। এই রাষ্ট্র সকল বাঙালির এমনকি দেশে বসবাসরত অবাঙালিদেরও। চলমান ঘটনাগুলো মুক্তিযুদ্ধের এই মৌল চেনতাকেই আঘাত করছে। এসবের প্রতিবাদেই আমাদের এই নাটক।

 

রিপোর্ট :পলাশ দেবনাথ এটিএম নিউজ টিভি

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

doeltv38GRD5838
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Developed By ATM News