রবিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ০৮:৪২ অপরাহ্ন
শিরোনাম :

দক্ষিণ সুরমায় এইডস আক্রান্ত মা-ছেলেকে ঘর থেকে তাড়িয়ে সম্পত্তি আত্মসাতের চেষ্টা”

  • আপডেট টাইম : বুধবার, ৪ নভেম্বর, ২০২০, ১০.১৭ পিএম
  • ৬৩ বার পঠিত

“দক্ষিণ সুরমায় এইডস আক্রান্ত মা-ছেলেকে ঘর থেকে তাড়িয়ে সম্পত্তি আত্মসাতের চেষ্টা”

 

সিলেটে এইডস আক্রান্ত মা-ছেলেকে মারধর করে ঘর থেকে তাড়িয়ে দিয়ে সম্পত্তি আত্মসাৎ করা চেষ্টা চলছে। এমন অভিযোগে ভুক্তভোগী দক্ষিণ সুরমা থানায় একটি অভিযোগ দাখিল করেছেন।

 

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, এইডস আক্রান্ত বিধবা সেজনা বেগম দক্ষিণ সুরমা থানার তেঁতলী ইউনিয়নের টিল্লাবাড়ীর মৃত কাওসার আহমদের স্ত্রী। কাওসার আহমদ সৌদিআরব থাকাকালে এইডস আক্রান্ত হয়ে দেশে আসার পর মৃত্যুবরণ করেন। স্বামী কাওসারের মাধ্যমে স্ত্রী সেজনা বেগম ও পরবর্তীতে জন্মনেয়া তাদের ছেলে আব্দুর রহমান ইয়াছিরের (সাব্বির) শরীরেও বাসাবাঁধে মরণব্যাধি এইডস। বর্তমানে মা-ছেলে রয়েছেন চিকিৎসাধীন।

 

অন্যের সাহায্য-সহযোগীতায় চলা সেজনা বেগম ও তার ছেলেকে কাওসারের মা, ভাই এবং ভাইর বউ সম্প্রতি মারধর করে আসবাবপত্র ঘরের বাহিরের ফেলে দিয়ে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেন। সেজনা বেগম নিরোপায় হয়ে বর্তমানে ছেলেকে নিয়ে বাপের বাড়ি অবস্থান করছেন।

 

তিনি আরো অভিযোগ করেন, তার স্বামীর বসতভিটা থেকে চিরতরে উচ্ছদ করতে তার উপর নানা অযুহাতে মানসিক ও শারীরিক নির্যাতন করা হয়। ইতি পূর্বে বিষয়টি নিয়ে কয়েকবার গ্রামে সালিস বৈঠক হয়। বৈঠকে সেজনার বিরোধীপক্ষ সালিসকারীদেরও কথা অমান্য করে। অবশেষে স্বামীর ভিটেমাটিতে বসবার করতে পুলিশ প্রশাসনের সহযোগীতা চেয়েছেন তিনি।

 

অভিযোগ পাওয়ার পর দক্ষিণ সুরমা থানার এসআই মামুন মিয়া ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে সেজনা বেগম ও তার ছেলে সাব্বিরকে কোনো ধরেনের ভয়ভীতি এবং বসতবাড়ি থেকে না তাড়াতে বলে আসেন। তার পরও সেজনা বেগমকে দেবর ফয়সল আহমদ, তার স্ত্রী রুবিনা বেগম, শাশুড়ি জামিলা খাতুন মারধর করে মা-ছেলেকে ঘর থেকে বের করে দেয়। বাবার বাড়িতে বসবাসকারী সেজনা বেগম স্বামীর বসতভিটায় পুনরায় ফিরতে ও স্বামীর রেখে যাওয়া সম্পত্তি আত্মসাৎ থেকে রক্ষা করতে এবং তার প্রাণনাশের আশঙ্কায় থানা পুলিশের সহযোগীতা চান।

 

অভিযোগের তদন্তকারী কর্মকর্তা দক্ষিণ সুরমা থানার এসআই মামুন মিয়ার সাথে কথা হয়। তিনি জানান, ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে জানতে পেরেছি পারিবারিক বিষয় নিয়ে বিরোধ। স্থানীয়ভাবে নিষ্পত্তি হওয়ার কথা রয়েছে। কোনো পক্ষকে বিরোধে না জড়াতে বলে দিয়েছি।

 

রিপোর্টঃ পলাশ দেবনাথ দৈনিক এটিএম নিউজ সিলেট।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

doeltv38GRD5838
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Developed By ATM News