সোমবার, ০২ অগাস্ট ২০২১, ০৮:১০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হওয়া মোহাম্মদ হোসাইন এর এতিম দু শিশুর জন্য পূণর্বাসন ফাউন্ডেশন গঠন ও সহায়তা প্রদান; চলাচলের অনুপযোগী দোয়ারাবাজারের লাফার্জ ক্যাম্পের সামনের সড়ক: বেড়েই চলছে জনদূর্ভোগ  ধুনটে কনস্টেবল জগদীশ চন্দ্রকে অবসরকালীন বিদায় জানালো থানা পুলিশ খুলনা বিভাগে করোনায় ১৯ জনের মৃৃত্যু টেকনাফে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় এক রোহিঙ্গা উদ্ধার টানা বৃষ্টিতেপ্লাবিত কয়রা উপজেলা। করোনায় খুলনা বিভাগে ২৪ ঘন্টায় ৩৪ জনের মৃৃত্যু। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের 1 বছর একশত ১৫ দিন পার হলো বৃহস্পতিবার  বদরখালী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ওসমান গণির আকষ্মিক মৃত্যুতে এমপি জাফর আলম বিএ অনার্স এম এ এর শোক চকরিয়ায় চলাচলের রাস্তা কাঁটাতারের বেড়া দিয়ে ঘিরে রাখায় পথচারীদের হাঁটতে দারুণ ভোগান্তি 

ডবলমুরিং থানা এলাকা মাদকের অভয়ারণ্য : মাদক ব্যবসায়ীদের ছুরিকাঘাতে যুবক নিহত

  • আপডেট টাইম : সোমবার, ২৯ জুন, ২০২০, ৯.১১ এএম
  • ৩৭ বার পঠিত

বিশেষ প্রতিনিধি

দিন দিন বেপরোয়া হয়ে উঠছে ডবলমুরিং থানা এলাকার মাদক ব্যবসায়ীরা৷ প্রশাসনকে ম্যানেজ করে ডবলমুরিং থানাধীন, হাজী পাড়া, দাইয়া পাড়া নালার পাড় ও পইট্যার দিঘীর পাড় মাদক ব্যবসায়ীদের অভয়ারণ্য৷ এসব মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে টুশব্দ করলে প্রতিবাদকারীদের ওপর শুরু হয় সন্ত্রাসী হামলা৷

হাতপাতালে আহত অবস্থায় থাকা অভি মীর
সর্বশেষ মাদক ব্যবসায়ীদের ছুরিকাঘাতে মীর সাদেক অভি (২৪)ওরফে অভি মীর খুন হয়েছেন । জানা যায়, গত১৮ জুন চট্টগ্রামের আগ্রাবাদস্থ হাজীপাড়া এলাকায় চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ীদের অপকর্মের প্রতিবাদ করে অভি মীর সহ এলাকার যুবকরা। এই সময় মাদক ব্যবসায়ীদের অস্ত্রধারী ক্যাডারদের ছুরিকাঘাতে গুরুতর আহত হন অভি গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি চিকিৎসা দেয়া হয় । কিন্তু করোনার কারণে বাধ্য হয়ে হাসপাতাল ছেড়ে বাসায় চলে আসেন অভি । কিন্তু হঠাৎ অবস্থার অবস্থার অবনতি হলে তাকে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন হাসপাতালে ভর্তি করা হয় । সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল ২৩ জুন রাত দুইটার তিনি মারা যান৷

মূলত স্থানীয় থানা পুলিশের কতিপয় অসাদু পুলিশ সদস্যকে দৈনিক নির্ধারিত অংকের টাকার বিনিময়ে প্রকাশ্য ইয়াবা, ফেন্সিডিলের রমরমা ব্যবসা চালাচ্ছে একাধিক মাদক সিন্ডিকেট।

মাদক বেচাকেনার স্বর্গরাজ্য দাইয়া পাড়া-

ডবলমুরিং থানাধীন দাইয়া পাড়া এলাকাটি এখন মাদক ব্যবসায়ীদের অভয়ারণ্যে পরিণত হয়েছে৷ দাইয়া পাড়ার নালার পাড় ও পইট্যার দিঘীর পাড় এলাকাটিতে দিনরাত ইয়াবার জমজমাট হাট খুলেছে একাধিক সিন্ডিকেট৷ অভিযোগ আছে এখানে একাধিক আবাসিক ঘরের পাশাপাশি খোলা এলাকায় অস্থায়ী ঘর তুলে ইয়াবা সেবনের স্পট গড়ে উঠেছে৷ দাইয়া পাড়া এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী দীর্ঘ ৮ বছর সাজা খেটে আসা ৭ মামলার আসামী মাসুম সরকার প্রকাশ বাট্টা মাসুমের নেতৃত্বে সস্বস্ত্র সন্ত্রাসীদের একটি কিশোর গ্যাং এসব মাদক ব্যবসায়ীদের নিরাপত্তার কাজে নিয়োজিত থাকে৷ কুমিল্লার বাসিন্দা মাসুম সরকার দাইয়া পাড়া এলাকার গ্যাস বাবুলের বাসায় ভাড়া থেকে পাইকারী ইয়াবা ব্যবসার নিয়ন্ত্রন করছে বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন৷

মাসুম সরকার প্রকাশ বাইট্টা মাসুম ও গুলজার
এই এলাকার গুলজার আলম দাইয়া পাড়া এলাকায় পাইকারী ইয়াবা সরবরাহ করছে। গুলজারের বিরুদ্ধে মাদক, অস্ত্র সহ অন্তত তিনটি মামলা চলমান থাকার তথ্য মিলেছে৷ ইয়াবা পাইকার হিসেবে আরেক মাদক সিন্ডিকেট প্রধান মোন মিজান৷ মিজান মূলত দাইয়া পাড়ার পটিয়ার দিঘীর পাড় অংশের মাদক ব্যবসা নিয়ন্ত্রন করে।

মাদক সেবন কালে ফক্স রানা।
দাইয়া পাড়ার আলোচিত আরেক শীর্ষ সন্ত্রাসী জালাল আহম্মেদ প্রকাশ ফক্স রানার বিরুদ্ধেও মাদক ব্যবসার অভিযোগ দীর্ঘদিনের৷ মাদক, অস্ত্র, মটোর সাইকেল চুরি সহ অনেক মামলার আসামী ফক্স রানা নিজেও মাদক সেবী৷ এলাকাবাসীর অভিযোগ প্রতিদিন ডবলমুরিং থানার একজন এসআই ও এএসআই এসব মাদক স্পট থেকে নগদ ২৫০০ টাকা উত্তোলন করে৷ ফলে এসব মাদক ব্যবসায়ীরা কাউকেই পরোয়া করেনা৷

হাজী পাড়ার মাদক নিয়ন্ত্রন করছে পুলিশের সোর্স –

ডবলমুরিং থানা এলাকার মাদক ব্যবসায় ২য় অবস্থানে আছে হাজী পাড়া এলাকা৷ হাজী পাড়ার মাদক ব্যবসার মূলে স্থানীয় থানার সোর্স হিসেবে পরিচিত জাহাঙ্গীর প্রকাশ সোর্স জাহাঙ্গীর৷ অভিযোগ আছে থানা পুলিশের হাতে উদ্ধার হওয়া ইয়াবার একটি অংশ অসাধু পুলিশ সদস্যদের হাত ঘুরে এই সোর্স জাহাঙ্গীরের কাছে পৌছে৷

হাজী পাড়ার সোর্স জাহাঙ্গীর
এই এলাকায় জনৈক এসকান্দর মিঞার ছেলে মোঃ আরিফ ও মৃত বুলুর ছেলে টুটুলের বিরুদ্ধে মাদক ব্যবসার অভিযোগ রয়েছে৷ এসব মাদক সিন্ডিকেটের নিজস্ব ক্যাডার বাহিনীরা মাদকের বিরুদ্ধে প্রতিবাদকারীদের ওপর হামলা চালালেও পুলিশ অনেক সময় অভিযোগ আমলে নিতেও রাজি হয় না৷ হাজী পাড়া থেকে দৈনিক ২ হাজার টাকা করে পুলিশের নামে চাঁদা আদায় করে সোর্স জাহাঙ্গীর নিজেই৷

গতকাল মারা যাওয়া অভি মীর হত্যায় বাবু নামের স্থানীয় এক যুবককে অভিযুক্ত করে মামলা দায়ের করেছে নিহতের পরিবার৷

এই বিষয়ে ডবলমুরিং থানার ওসি সদীপ কুমার জানিয়েছে, নিহত অভি মীর নিজে বাদী হয়ে (১৮ জুন ২০২০ইং) বাবু ও তার অপর দুই ভাইকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেছিলো৷ সেখানে অভি তাকে ছুরিকাঘাত করার কারণ হিসেবে মাদক ব্যবসা সংক্রান্ত কোন অভিযোগ তুলেনি৷ এলাকার মাদক নির্মূলে থানা পুলিশ তৎপর আছে বলে জানান ওসি সুদীপ৷

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

doeltv38GRD5838
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Developed By BanglaHost