শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ১২:০১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :

চকরিয়ায় এমপির সাথে সাংবাদিক নির্যাতন মামলার আসামীদের ঈদ শুভেচ্ছা ও ফটোসেশন নিয়ে সর্বত্রে ক্ষোভ

  • আপডেট টাইম : রবিবার, ১৬ মে, ২০২১, ৯.১৩ এএম
  • ১৯৩ বার পঠিত

চকরিয়ায় এমপির সাথে সাংবাদিক নির্যাতন মামলার আসামীদের ঈদ শুভেচ্ছা ও ফটোসেশন নিয়ে সর্বত্রে ক্ষোভ

 

চকরিয়া প্রতিনিধি:

চকরিয়ায় ৩জন সাংবাদিকের উপর হামলার ঘটনায় দায়েরকৃত মামলার আসামীরা এখন প্রকাশ্য দিবালোকে। এমনকি তারা ঈদেরদিন ১৪ মে দুপুরে চকরিয়া-পেকুয়া আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য জাফর আলমের সাথে তাঁর পালাকাটাস্থ বাসভবনে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করে ফটোসেশনও করেছেন। নেতৃত্বে ছিল হামলার পরিকল্পনাকারী প্রধান আসামী ডুলাহাজারার অনুপ্রবেশকারী যুবলীগ নেতা হাসানুল ইসলাম আদর। এমনকি শুভেচ্ছাকালে এমপির সাথে কালার মিলিয়ে একই ডিজাইনের পাঞ্জাবীও পড়েন সাবেক কথিত পিএস আদর।

এমপির সাথে শুভেচ্ছা বিনিময়কালে সাংবাদিক নির্যাতন মামলার প্রধান আসামী হাসানুল ইসলাম আদর, হাবিবুল ইসলাম নয়ন, ইরশাদুল গনি সাকিব, তানভীর হাসান ফাহিম, নাঈমুল ইসলাম নয়ন, দিদারুল আলম, মোহাম্মদ আনাছসহ অন্যান্য আসামীরা উপস্থিত ছিলেন।

 

স্থানীয় সচেতন মহল জানিয়েছেন, জাতীয় সংসদের একজন আইন প্রণেতা সদস্যের সাথে আসামীদের ঈদ শুভেচ্ছার নামে ফটোসেশন সত্যিই আইন বহি:র্ভূত। যা একজন এমপি হিসেবে করতে পারেন না। তিনি শুভেচ্ছা বিনিময় করলেও অন্তত ফটোসেশন না করতে পারতেন। এর ফলে একপ্রকার আইনশৃংখলা পরিপন্থি কর্মকান্ডের মত হয়ে পড়েছে। যার কারণে জিআর মামলার অভিযুক্ত আসামীরা আইনের শাসনের প্রতি বৃদ্ধাঙ্গুলী প্রদর্শন করতে আরো বেশি আস্কারা পেয়ে যাবে।

আসামীদের সাথে এমপির ফটোসেশনে তীব্র ক্ষোভ ও অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন মামলার বাদী দৈনিক আমার সংবাদের প্রতিনিধি চকরিয়া প্রেসক্লাবের যুগ্ম সম্পাদক সাংবাদিক মোহাম্মদ উল্লাহসহ নির্যাতিত ৩জন সাংবাদিক। তারা অভিযুক্ত আসামীদের গ্রেফতারসহ যথাযথ আইনের প্রয়োগে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীসহ প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

তারা বলেন, আসামীদের বিষয়ে থানা পুলিশকে বারবার তথ্য দিলেও পুলিশ রহস্যজনক কারণে কোন আসামীকে গ্রেফতারী করেনি এমনকি অভিযানও পরিচালনা করেনি। কিন্তু পুলিশ তদোত্তরে বলেন, আসামীদের গ্রেফতারে পুলিশ হন্য হয়ে খুজছে ও আসামীদের গ্রেফতারে অভিযানও অব্যাহত রয়েছে বলে মন্তব্য করেন। ইতিপূর্বে মামলা তুলে নিতে প্রধান আসামীর নেতৃত্বে আসামীরা বাদী ও স্বাক্ষীদের ফের প্রাণনাশের হুমকি দেয়ায় থানায় ১৩ মে রাতে নতুন করে সাধারণ ডায়েরীও রুজু করা হয়।

এদিকে, চকরিয়া প্রেস ক্লাবের সভাপতি এম জাহেদ চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক এম মিজবাউল হকসহ ক্লাব নেতৃবৃন্দও এঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। তারা অবিলম্বে আসামীদের গ্রেফতার দাবী করেন।

 

উল্লেখ্যযে, পাহাড় নিধন করে পরিবেশ ধ্বংস, অবৈধভাবে বালু উত্তোলনসহ বিভিন্ন অনিয়মের সংবাদ তথ্য সহাকের পত্রিকায় প্রকাশ হওয়ার পর পরিবেশ অধিদপ্তর কক্সবাজার গত ২ মে’২১ইং সকালে সরে জমিনে তদন্তে আসেন। পরিবেশ অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের অনুরোধে তিন সাংবাদিক যথাক্রমে দৈনিক যুগান্তর চকরিয়া প্রতিনিধি মনসুর মহসিন, দৈনিক আমার সংবাদ প্রেসক্লাবের যুগ্ম-সম্পাদক মোহাম্মদ উল্লাহ ও দৈনিক আজকের দেশ-বিদেশের প্রতিনিধি মোস্তফা কামাল সাথে ছিলেন। কাজ শেষে চকরিয়া পৌর সদরে ফেরার পথে ডুলাহাজারা সাফারী পার্কের সামনে ন্যাক্কারজনক হামলার ঘটনা ঘটে। হামলার পর ৩ মে দুপুরে নির্যাতিত সাংবাদিক মোহাম্মদ উল্লাহ বাদি হয়ে চকরিয়া থানায় মামলাটি (নং-২, জি.আর-১৭৮/২১) দায়ের করেন।

 

আসামীদের সাথে ফটোসেশনের বিষয়ে সাংসদ জাফর আলমের বক্তব্য নিতে তাঁর ও পিএস আমিনের মুঠোফোনে একাধিকবার চেষ্টা করেও কল রিসিভ না হওয়ায় বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

 

চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাকের মোহাম্মদ যুবায়ের বলেন, সাংবাদিকদের উপর হামলার ঘটনায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামলা নেয়া হয়েছে। তিনি হামলার ঘটনাটি খুবই দু:খজন বলে উল্লেখ করেন এবং এমপি’র সাথে আসামীদের ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় ও ফটোসেশনের বিষয়ে কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি। ###

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

doeltv38GRD5838
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Developed By ATM News