রবিবার, ২৩ জানুয়ারী ২০২২, ০৮:৫৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
শহীদ শেখ ফজলুল হক মণি আন্তঃউপজেলা ব্যাডমিন্টন টুর্নামেন্ট ২০২২ খুলনা বিভাগে করোনায় ৯ জনের মৃত্যু : শনাক্ত ১২৪ জন। কক্সবাজার সমুদ্র বুকে প্রথম রানওয়ে: দেশে প্রথম টেকনাফের চাঞ্চল্যকর ইসমত আরা হত্যাকান্ডের মামলা এখন হিমাগারে দীর্ঘ ৮০ বছর পর চন্দনাইশ মকবুলিয়া ফাজিল মাদ্রাসার অভিভাবক নির্বাচন সম্পন্ন হয়, নিখোঁজ_সংবাদ….। টেকনাফে ২লাখ ৫০হাজার পিস ইয়াবাসহ ট্রলার জব্দ ধুনট উপজেলা আওয়ামীলীগের সংবাদ সম্মেলনে খন্দকার মোস্তাক অনুসারীদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়ার দাবী ধুনটে গ্রেনেড হামলা দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত কক্সবাজারে ‘ওসির ভাব নিয়ে’ মামলা তদন্ত করেন এসআইয়ের স্বামী!

করোনা আক্রান্তের সংখ্যা চট্টগ্রামে সাত হাজারের কাছাকাছি

  • আপডেট টাইম : বুধবার, ২৪ জুন, ২০২০, ৫.৩১ পিএম
  • ৮৫ বার পঠিত

জামাল হোসাইন, বিশেষ প্রতিনিধি

দেশে করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা প্রতিদিনই বেড়ে চলেছে। বর্তমানে সংক্রমণের সবচেয়ে বিপজ্জনক এলাকার মধ্যে অন্যতম একটি হলো চট্টগ্রাম।

গত ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রামে ২৮০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্য দিয়ে চট্টগ্রামে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৬ হাজার ৯৭৯ জনে দাঁড়ালো। তবে গত ২৬ মার্চ চট্টগ্রামে করোনার নমুনা পরীক্ষা শুরুর পর প্রথম ৪০ দিনে মোট শনাক্তের হার ছিলো মাত্র ১০৫ জন। কিন্তু পরের দেড় মাসে বন্দর নগরে করোনা পরিস্থিতির অবনতি ঘটেছে দ্রুতগতিতে।

বুধবার (২৪ জুন) সকালে চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. শেখ ফজলে রাব্বি এটিএম নিউজকে বলেন, চট্টগ্রামের পাঁচটি ল্যাব এবং কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ ল্যাবে ৯৯১ টি নমুনা পরীক্ষায় চট্টগ্রামে নতুন করে আরও ২৮০ জনের শরীরে করোনা পজিটিভ পাওয়া গেছে। নতুন আক্রান্তদের মধ্যে ১৫৫ জন চট্টগ্রাম নগরের এবং ১২৫ জন বিভিন্ন উপজেলার বাসিন্দা।’

সিভিল সার্জন ডা. শেখ ফজলে রাব্বি জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রামে করোনায় আক্রান্ত হয়ে ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। আক্রান্তদের মধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৮৭৯ জন। বর্তমানে চিকিৎসাধীন আইসোলেশনে আছেন ৩৫৩ জন। সিভিল সার্জনের তথ্য অনুযায়ী গত ১ মাসে মৃত্যুর সংখ্যা ১০৩ জন। গত ৩ এপ্রিল চট্টগ্রাম নগরীর দামপাড়ায় ৬৭ বছর বয়সী এক ব্যক্তির শরীরে প্রথম করোনা শনাক্ত হয়। ওই ব্যক্তি তার ওমরাফেরত মেয়ের মাধ্যমে সংক্রমিত হন বলে ধারণা করা হয়। পরে ৫ এপ্রিল দ্বিতীয় করোনা রোগী হিসেবে শনাক্ত হন ওই ব্যক্তির ২৫ বছর বয়সী ছেলে।

এর পরে এক-দুই করে নগরে করোনার পরিস্থিতি অবনতি হতে শুরু করে। তবে গত ২৬ এপ্রিল থেকে পোশাক কারখানাগুলো চালুর সঙ্গে সঙ্গে নগরের অঘোষিত লকডাউন পরিস্থিতি ভেঙে পড়তে শুরু করে। এরপর কল্পনাতীতভাবে দ্রুত গতিতে করোনা পরিস্থিতির অবনতি হয়।

চট্টগ্রাম সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে পাওয়া সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, এ পর্যন্ত চট্টগ্রামে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৬ হাজার ৯৮ জন। এর মধ্যে শুধুমাত্র চট্টগ্রাম শহরেই সংক্রমিত রোগীর সংখ্যা মোট রোগীর প্রায় ৭০ শতাংশ। প্রথমদিকে নগরের প্রবেশমুখ সিটি গেট, আকবরশাহ ও পাহাড়তলী এলাকাকে ঘিরে করোনার বিস্তার ঘটলেও দ্বিতীয় মাসে সংক্রমিত হয়েছেন নগরের প্রায় সব এলাকার মানুষ।

ইপিজেড-বন্দর বা চকবাজারের মতো জনবহুল এলাকায় যেমন করোনার বিস্তার ঘটেছে, তেমনই অপেক্ষাকৃত কম জনবহুল চাঁন্দগাও বা মোহরার মতো এলাকাও বাদ যায়নি।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

doeltv38GRD5838
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Developed By ATM News