রবিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ০৮:১১ অপরাহ্ন
শিরোনাম :

একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির তিন চিকিৎসক নেতা করোনাক্রান্ত

  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ১৮ জুন, ২০২০, ১২.২৬ এএম
  • ১৫৮ বার পঠিত

ঢাকা, ১৭ জুন ২০২০
প্রেস বিজ্ঞপ্তি
একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির তিন চিকিৎসক নেতা অধ্যাপক ডাঃ উত্তম কুমার বড়ুয়া, অধ্যাপক ডাঃ মামুন আল মাহতাব(স্বপ্নীল) ও শহীদসন্তান ডাঃ নুজহাত চৌধুরী শম্পা করোনা ও অন্যান্য রোগাক্রান্তদের বিরামহীন চিকিৎসা সেবা প্রদান করতে গিয়ে নিজেরা করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। আজ(১৭ জুন) নির্মূল কমিটির সভাপতি শাহরিয়ার কবির ও সাধারণ সম্পাদক কাজী মুকুল কর্তৃক স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে বলা হয়-
‘নির্মূল কমিটির চিকিৎসা সহায়ক কমিটির সভাপতি, শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল হাসপাতাল ও কলেজের পরিচালক অধ্যাপক ডাঃ উত্তম কুমার বড়ুয়া, চিকিৎসা সহায়ক কমিটির সাধারণ সম্পাদক, বঙ্গবন্ধু মেডিকেল হাসপাতাল ও বিশ্ববিদ্যালয়ের লিভার বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডাঃ মামুন আল মাহতাব(স্বপ্নীল) ও মুক্তিযুদ্ধে শহীদ ডাঃ আলিম চৌধুরীর কন্যা, নির্মূল কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ডাঃ নুজহাত চৌধুরী শম্পা বাংলাদেশে করোনা সংক্রমণের সূচনাকাল থেকে তাদের সকল ছুটি বাতিল করে করোনাক্রান্ত ও অন্যান্য রোগীদের বিরামহীন চিকিৎসা সেবা প্রদান করতে গিয়ে নিজেরা করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। ডাঃ উত্তম বড়ুয়া বর্তমানে সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন এবং ডাঃ স্বপ্নীল ও ডাঃ শম্পা নিজেদের বাড়িতে কোয়ারেন্টাইনে থেকে চিকিৎসা গ্রহণ করছেন।
ডাঃ উত্তম ও ডাঃ স্বপ্নীলের নেতৃত্বে ২০১৮ সালে গঠিত নির্মূল কমিটির চিকিৎসা সহায়ক কমিটি করোনা সংক্রমণের সূচনা থেকে বিশিষ্ট চিকিৎসকদের নামে ইশতেহার ও ফেস্টুন প্রকাশের পাশাপাশি সারা দেশে সংগঠনের বাছাই করা ১০৮ জন চিকিৎসকের একটি বিশেষ প্যানেল ঘোষণা করেছে যারা দিনের একটি নির্দিষ্ট সময় করোনাক্রান্ত ও অন্যান্য রোগীদের টেলিফোনের মাধ্যমে চিকিৎসা সেবা প্রদান করছেন। হাসপাতালে রোগীদের দেখার পাশাপাশি তারা টেলিভিশনের বিভিন্ন আলোচনায় নিয়মিত অংশগ্রহণ এবং গণমাধ্যমে লেখার মাধ্যমে করোনা সংক্রমণের বিরুদ্ধে স্বাস্থ্যসচেতনতা সৃষ্টির কার্যক্রমে যুক্ত রয়েছেন।
‘ডাঃ উত্তম বড়ুয়ার সংক্রমণের ১২দিন অতিবাহিত হয়েছে। তিনি ও তার আক্রান্ত স্ত্রী হাসপাতালে থাকলেও গত ১৪ জুন সংক্রমণের দিন থেকে ডাঃ স্বপ্নীল ও ডাঃ শম্পা বাড়িতে কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন। আমরা বিশ্বাস করি করোনার বিরুদ্ধে তাদের মতো প্রথম সারির লড়াকু যোদ্ধারা দ্রুত সুস্থ হয়ে আবার চিকিৎসা সেবা কার্যক্রমে পূর্ণোদ্যমে অংশগ্রহণ করবেন। যে সব চিকিৎসক নিজেদের এবং পরিবারের সদস্যদের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এই মহামারীর সময় চিকিৎসা সেবা অব্যাহত রেখেছেন তাঁরা আর্তমানবতার সেবায় সর্বোচ্চ দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। তারা গোটা জাতিকে কৃতজ্ঞতাপাশে আবদ্ধ করেছেন। আমরা তাদের অভিনন্দন জানাই। তাদের পরিবার ও সংগঠনের পক্ষ থেকে আমরা আমাদের সকল আক্রান্ত চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মী ও অন্যান্যদের দ্রুত আরোগ্যের জন্য দেশবাসীর দোয়া ও প্রার্থনা কামনা করছি।’

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

doeltv38GRD5838
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Developed By ATM News