বৃহস্পতিবার, ২১ অক্টোবর ২০২১, ১১:৩৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম :

উচ্চ শিক্ষা

  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ১৭ জুলাই, ২০২০, ৫.১০ পিএম
  • ১৯১ বার পঠিত

– HME Rimon

সবার অনার্স-মাস্টার্স, পিএইচডি’র প্রয়োজন নেই: শিক্ষামন্ত্রী। বাংলাদেশের প্রতিটি সরকারের শিক্ষামন্ত্রী এবং তাদের সাপোর্টে কিছু সুবিধাভোগী বুদ্ধিজীবী একই ডায়ালগ দেন।

ডিগ্রী পাশ না করলে তো বাংলাদেশে বিয়ে করাই খুব কঠিন হয়ে যায়। ডিগ্রীর নিচে কোন পড়ালেখাকে আমাদের দেশে সম্মানের সাথে দেখা হয় না। এটি সামাজিক ইস্যুর কথা বললাম।

আমার মতে, অনার্স-মাস্টার্স যদি কোন গবেষণা ছাড়া পাশ করা যায়, তাহলে তো সবাই করবেই। প্রশ্নের উত্তর মুখস্থ করেই ডিগ্রী আর মাস্টার্স পাশ করা যায়। বাংলাদেশে এইচ এস সি পাশ করতে পারলেই মোটামুটি তাদের উচ্চ শিক্ষার সার্টিফিকেট নিতে আর বেগ পেতে হয় না।

বাংলাদেশের সবচেয়ে পরিচিত বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন ডিপার্টমেন্টের লেকচারার কিংবা এসিস্ট্যান্ট প্রফেসরদের প্রোফাইল খোঁজে দেখবেন ১-২ টির বেশি পাবলিকেশন নেই। কিছু বিভাগের চেয়ারম্যান দেখলাম তাদের পিএইচডি ডিগ্রীই নেই। অনেক বিভাগের চেয়ারম্যানদের পাবলিকেশনের কোন ইতিহাস ওয়েবসাইটে দেয়া নেই।

বাংলাদেশের আরেকটি অতি মেধাবীদের বিশ্ববিদ্যালয়ের অনেক লেকচারার দেখবেন শুধু অনার্স পাশ করেছেন। তারা এখনও মাস্টার্সই পাশ করেন নি। পৃথিবীর অন্যান্য উন্নত দেশে কি এত কম এডুকেশনাল ব্যাকগ্রাউন্ড নিয়ে কোনভাবেই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক হওয়া সম্ভব?

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের নিয়ে কথা বলার মত কোন যোগ্যতা আমার নেই। শিক্ষকদের দিয়েই পরিবর্তন আনতে হবে বলে আমি একটু ডাটা দিলাম।

তবে বাংলাদেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়াশোনা যে কোনভাবেই আন্তর্জাতিক মানের না তা নিসন্দেহে বলা যায়। বিশ্ববিদ্যালয় হতে পাশ করা একটি ছেলে থিসিস পেপার লিখতে জানে না। টার্ম পেপার লিখে কপি করে, কিংবা আরেকজনকে দিয়ে লিখিয়ে নেই। এমনকি একজন শিক্ষকেরও কপি করার কথা পেপারে এসেছিল।

শুধু বিসিএস আর ব্যাংক জবই আমাদের শিক্ষার্থীদের ভরসা। জ্ঞানার্জন অনেক দূর।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

doeltv38GRD5838
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Developed By ATM News